অ্যাডসেন্স অ্যাপ্রুভ ব্লগার থীম সেট আপ

blogger theme setup

অ্যাডসেন্স অ্যাপ্রুবের জন্য ব্লগারের থীম সেটআপ খুবি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। বেশীর ভাগ বিগেইনার ব্লগার ইউজারাই জানে না এ ব্যাপারটি। আর তাই নানা প্রকার সমস্যায় পড়ে যায় কাজ করার সময়।

আপনারা যুদি খুব দ্রুত অ্যাডসেন্স অ্যাপ্রুভের জন্য আপনার ওয়েবসাইটে কী কী পরিবর্তন আনা দরকার তা জানতে আগ্রহি থাকেন তবে আমাদের এ লেখাটি পড়ে নিতে পারবেন।

আর যুদি আপনি আপনার ব্লগার ওয়েবসাইটের জন্য ভালো এসইও ফ্রেন্ডলি এবং একেবারে ফ্রী থীম খুজে থাকেন তবে আমাদের এ লেখাটি পড়ে নিতে পারবেন বা টপিক কলাম থেকে সরাসরি থীম নিয়ে নিতে পারবেন।

আমরা আমাদে এ লেখাটিতে আপনাদের দেখাবো আপনারা কী ভাবে আপনাদের ফ্রী ব্লগথীমটি আপনার ব্লগার ওয়েবসাইটটিতে সেট আপ করবেন।

আপনারা ভালো মানের কন্টেন্ট লিখলে থীম ছারাই আপনার ব্লগার ওয়েবসাইটটি অ্যাপ্রুভ করিয়ে নিতে পারবেন। তবে অডিয়েন্স এর দূষ্টি আকর্ষনের জন্য আপনার সাইটটিতে একটি ভালো থীম থাকাটা খুবি জরুরি।

আর অ্যাডসেন্স কোনো ওয়েবসাইট চেক করার সময় এসব বিষয় গুলোও খুব করাকরি ভাবে চেক করে। কারন অ্যাডসেন্স হলো গুগলে একটি পণ্য আর গুগল সবসময় তার ইউজারদের সেরাটা দিতে চেষ্টা করে।

ব্লগার থীম সেট আপ

শুরুতেই আপনি আপনার ব্লগার থীম যেটি আপনি আপনার সাইটে ইউজ করতে চাচ্ছেন সেটা বাছাই করে ডাউনলোড করে নিন। মনে রাখবেন আপনার ডাউনলোড করা জীপ ফাইলটি একটি নতুন ফোল্ডারে রাখবেন। তবে কাজটা সহজ আর দ্রুত হয়ে যাবে।

জীপ ফাইলটি যে ফোল্ডারে রেখেছেন সেটি আপেন করুন। আর আপেন করে ফাইলটি এক্সেক্ট করে নিন। বোঝানোর জন্য আমি নিচে একটি স্কিসসট দিয়ে দিয়েছি যে কী ভাবে আপনি আপনার জীপ ফাইলকে একটি সাধারণ ফোল্ডারে রুপান্তরিত করে নিবেন।

এক্সেক্ট হেয়ার করার সাতে সাতে আপনার জীপ ফাইলটির সব ডকুমেন্ট ব্যবহার উপযোগি হয়ে যাবে। আর এ ডকুনেস্ট গুলোর মধ্যে সবথেকে বেশী গুরুত্বপূর্ণ হলো XML এর ডকুমেন্টটি। এটাই আপনার থীমের কোড। যেটি আপনি আপনার ওয়েবসাইটে এড করবেন।

আর যুদি চিনতে না পারেন তবে আপনার তালিকায় খুজে দেখবেন ডে ডকুমেন্টটির সাইড সব থেকে বেশী অথ্যৎ 300kb বা তার উপরে তাই আপনার থীম।

আমার থামটির সাইজ 364 kb. দেখতেই পাচ্ছেন টাইপের নিচে লেখা দেখাচ্ছে XML Document. এবার শুরু হবে ব্লগার থীম এড করার কাজ।

ব্লগার থীম সেটআপ তেমন কোনো কঠিন কাজ না। আপনি একটা ব্লগার একাউন্ট করার পর তাতে চার থেকে পাচঁটার মতো পস্ট করে নিন। কারণ পোস্ট করা থাকলে আপনার জন্য আপনার থীম সেটআপ একটু বেশী সহজ হয়ে যাবে।

আপনি আপনার ব্লগার একাউন্টে প্রবেশ করে তার সাইড বার গুলোর থেকে থীম (Theme) অপশনটি বাছাই করে নিন। আর সেখানে আপনি কাস্টম নামের একটি বাটন দেখতে পাবেন।

এখান থেকেই আপনি আপনার থীম এড করবেন। কাস্টমের উপর ক্লীক করার পর আপনার সামনে আনেকগুলো অপশন খুলবে। সেগুলোর থেকে আপনি রিস্টোর নামের অপশনটি বাছাই করেন নিবেন।

আর রিস্টোরে ক্লিক করে আপনার XML ডকুমেন্টটি আপলোড করে দিবেন। আপনাদের সুবিধার জন্য আমি নিচে একটি স্কিনসট দিয়ে দিলাম।

তবে আপনাদের জন্য আমি আমার ডকুমেন বাছাই এর স্কিনসট নিচে দিয়ে দিলাম।

XML ডকুমেন্টটি চোজ করার সময় দেখতেই পাচ্ছেন এর কোডিং পাশে এসে গেছে। ডকুমেন্টটি চোজ করে অপেন বাটনি ক্লিক করে দিলে বা ডকুমেন্টটির উপরে মাউস রেখে দুইবার ক্লিক করে দিলে আপলোড অপশনটি চলে আসবে।

রিস্টোরে ক্লিক করলে আপনার সামনে আপলোডের অপশণটি চলে আসবে। আপনি চাইলে কেন্সেল করে দিতে পারবেন।

এখান থেকে আপলোডে ক্লিক করে দিলে আপনার থীমটি আপনার সাইটে সেট হয়ে যাবে। আর এবার আপনি আপনার থীম এর ডিসপ্লেতে কাজ ধরতে পারবেন।

আমরা সাইটে বা থীমটির কাস্টমাউজেশনের উপর কাজ করবো। থীমটির উপর কাজ করার জন্য আপনাকে ব্লাগারের সাইট মেনু থেকে লেআউট অপশণটি বাছাই করে নিতে হবে।

এখানে আনেক গুলো অপশন দেখতে পেয়ে যাবে তবে সবগুলো অপশনে কাজ করা যাবে না। শুথু এমন কিছু অপশন যে গুলো আমাদের প্রয়োজন শুধু সেগুলোর উপর কাজ করা হবে।

যে অপশন গুলোতেমরা কাজ করবো সে অপশন গুলো হলো:

  • Header Logo
  • Main Menu
  • Home Ads Top
  • Social Widget
  • Subscribe Us
  • Popular Posts
  • Facebook
  • Link List
  • Report Abuse
  • আমার সম্পর্কে
  • Trending
  • এই ব্লগটি সন্ধান করুন
  • About Us
  • Mobile Logo Settings
  • Hot Widget
  • Top Social Widget
  • Footer Menu Widget
  • add a gadget

Header logo

Header logo হলো আপনার ওয়েবসাইটে লোগ আপলোডের অপশন। এটির সাহায্যে আপনি আপনার ওয়েবসাইটটিতে আপনার লগো এড করবেন।

250 x 250px এর একটি হেডার লগো তৈরি করে তা আপনি আপনলোড করে দিবেন আপনার লগো আপশনে।

ইমেইজ আপলোড কারা জন্য অবশ্যই Upload image from computer এ অপশনটি বাছাই করে নিতে হবে। এ ছারা আর কোনো কিছুতে ক্রিক করতে হবে না আপনার। ইমেইজ লিংক আপনা আপনিই পরিবর্তন হয়ে যাবে।

Main Menu

মেইন মেনু যে কী সেটা তো আপনারা বুঝতেই পারছেন। আপনি এখানে আপনার প্রয়োজনিয় লিংকগুলি সেট আপ করবেন। যেমন আপনি আপনার কেটাগরি গুলো এখানে সেট আপ করতে পারবেন।

আর তা সেটআপ করার জন্য আপনি আপনার যে আর্টিকেল বা যে কেটাগরি সেট আপ করতে চান আপনার ওয়েবসাইট থেকে সে লিংক আপেন করুন আর কপি করে নিন।

টাইটেল এর জায়গায় টাইটেল লিখে যে জায়গায় https:// লেখা সেখানে https:// কেটে দিয়ে আপনা লিংকটি পেস্ট করে দিন। আর সেভ করে দিন। আপনার মেনু সেট হয়ে যাবে।

আপনি এখানে আনেক গুলো মেনু সেট আপ করতে পারবেন।

Home Ads Top

মোম অ্যাডস টপ এটিতে আপনার কোনো কাজ নেই। এটি যেমন আছে তেমন থাকতে দিন। আর যুদি সমস্যা মনে হয় তবে এটি ডিসঅ্যাবেল করে দিনে পারবেন।

show this widget অপশনটি অফ করে দিলেই আপনার সাইটে এর স্লথ আর দেখাবে না। তবে এটা আপনার প্রয়োজন হবে অ্যাডসেন্স অ্যাপুভ পাওয়ার পর গুগল অ্যাড দেখানোর সময়। তবে গুগলের একটি অটো কোড আছে যেটি আপনার থীমে ইউজ করলে গুগল অ্যাডসেন্স নিজেই স্লথ করে নিবে।

আপনাকে অ্যাড এর স্লথ করে দেওয়ার জন্য জায়গা খুজতে হবে না বা কোড করে তৈরি করে দিতে হবে না।

Social Widget

এটার সাহায়ে আপনি আপনার সোসাইল সাইটগুলো এড করে দিতে পারবেন আপনার সাইটে। আর এটা না রাখতে চাইলে হোম অ্যাড টপ এর মতো ডিজঅ্যাবেল করে নিতে পারবেন।

Subscribe Us

এর মধ্যে আপনি আপনার ইউটিউব চ্যানেল বা নিউজলেটার অ্যাড করে দিতে পারেবেন। এর জন্য আপনাকে আপনার নিউজলেটার বা ইউটিউব চ্যানেল এর লিংককে কেন্দ্র করে HTML / Java Script কোড লিখতে হবে।

আপনি কোড করতে না জানলে আমাদের এ লেখাটি পড়ে লেখাটিতে উল্লেখ করা ওয়েবসাইটে গিয়ে কোড কপি করে নিয়ে আসতে পারবেন। আর তার পর অ্যাড করে দিতে পারবেন।

আপনি যুুদি ইউটিউব এবং নিউসলেটার উভই এড করতে চান তবে Add a gadget অপশনটির সাহায্যে অ্যাড করে নিতে পারবেন।

Popular Posts

এটা আপনা কোনো পরিবর্তন করতে হবে না। আপনি শুধু এটা সেট করে দিবেন যে পপুলার পোস্ট অপশনটিতে আপনার কতগুলো পোস্ট সো করাবে তা। আপনি চাইলে ৩টি ৭টি বা ১১টিও দিয়ে দিতে পারবেন।

Facebook

এটার কােজতো ইতিমধ্যে জেনেই গিয়েছেন। চাইলে রাখতে পারবেন না চাইরে নাও রাখতে পারবেন। তবে রাখাটা ভালো হয়।

Link List

এটা খূবি গুরুত্বপূর্ণ একটি অপশন। এটিতে আপনি আপনার কিছু গুরুত্বপূর্ণ লিংক অ্যাড করবেন। এর বিষয়ে বিস্তারিত জানতে আমাদের এ লেখাটি দেখুন।

তবে এ অপশনটির গুরুত্ব আর অ্যাডসেন্স অ্যাপ্রুভে এর ভূমিকা বুঝে যাবেন। এটার কাজও ঠিম মেন মেনুর মতো করেই করবেন।

Report Abuse

এতে আপনার কোনো কিছু করার নেই। এটা যেমন আছে তেমন রেখে দিন। তবে আপনি এটা অফ করে রাখতে পারবেন।

আমার সম্পর্কে

এখানে ১০০ ওয়ার্ড এর মধ্যে কিছু কথা রিখে দিলেই পারবেন। আবার চাইলে ডিফোল্ট ভাবেও রেখে দিতে পারবেন।

Trending

Trending এখানেও আপনার পেস্ট গুলি দেখাবে। আপনার কোনো কোড করার প্রয়োজ নেই। শুধু সেচ করে দিবেন যে কতগুলো পোস্ট দেখাবে।

এই ব্লগটি সন্ধান করুন

ডিফোল্ট রেখে দিতে পারবেণ। আর তাছারা এটা পাল্টানোর কোনো প্রয়োজন নেই। চাইলে পাল্টাতে পারবেন।

About Us

এটিতে আপনি আপনাদের কম্পানি বা আপনার গ্রুপ বা আপনার নিজের সম্পর্কে লিখবেন।

Mobile Logo Settings

মোবাইল লগো তে আপনি আপনার লগোটি আবার আপলোড করে দিবেন ঠিক প্রথম লগোটি যে ভাবে আপলো করে দিয়েছিলেন।

Hot Widget

এখানেও আপনার পোস্টগুলো দেখাবে। না রাখলেও পারবেন আবার রাখলেও পারবেন।

Top Social Widget

এখানে আপনার সোসাইল মিডিয়া মাধ্যম গুলো দেখায়। আপনি চাইলে আপনার লিংক এড করে দিতে পারবেণ। আর না চাইলে ডিসঅ্যাবেলও করে দিতে পারবেন।

Footer Menu Widget

এ অপশনটিটে আপনি কন্টেক্ট আস বা অন্য কোনো মেনু অ্যাড করে দিতে পারবনে। তবে ডিফোল্টে যা থাকবে তাই রেখে দেওয়াটা ভালো হবে। শুধু লিংকগুলে পাল্টে দিবেন।

add a gadget

এটা খুবি মজাদার একটা অপশন। এর সাহায্যে আপনি আপনার কাস্টম লেআউট অ্যাড করত পারবেণ। শুধু আপনাকে কিছু কোড জানতে হবে।

আশা করি আপনারা বুঝতে পেরেছেন। আপনারা চাইলে ফ্রি ওয়ার্ড প্রেস ওয়েবসাইট দিয়েও ইনকাম করে নিতে পারবেন। আমি এখানে তা আর দেখালাম না। তবে পরে নতুন কোনো একটি লেখাতে নিশ্চই আপনাদের সাথে শেয়াযর করবো।

আরও কিছু পড়ুন আপনার পছন্দের

আপনি যুদি একজন কোডার হবে চান এবং অ্যাপ তৈরি করে ইনকাম করতে চান তবে আপনি আমাদের এ লেখাটি পড়ে দেখতে পারেন। আমরা এখানে লিখেছি আপনারা কী করে আপনার অ্যাপ দিয়ে বেশী ইনকাম করে নিবেন।

চাইলে আমাদের এ লেখাটিও পড়ে দেখতে পারেন। এখানে আমরা লিখেছি আপনি কী ভাবে কোডিং না জেনে অ্যাপ তৈরি করে ইনমাম করতে শুরু করে দিতে পারবেন।

Featured