ইসলামিক বই জানুন ইসলামের কথা

islamic books

আমাদের এ লেখার মাধ্যমে আমরা তুলে ধরবো এমন কিছু ইসলামিক বই যেগুলো পড়ে আপনি আপনার মনে থাকা সকল আজন প্রশ্নের জবাব পেয়ে যাবেন আর একজন মুমিনে পরিণত হয়ে যাবেন।

শিশুর জন্মের পর থেকে তাকে তার বাবা মা বাংলা শিক্ষায় শিক্ষিত করে তুলতে থাকে নিজের সন্তানের উজ্জল একটি ভবিষ্যতের আশায়। ইসলামি শিক্ষাযে দেয় না তা আমি বলছি না। তবে ইসলাম সম্পর্কে যা কিছু শেখানো হয় তার পরিসর খুবি ছোট।

যার ফল স্বরুপ শিশুটির মনে জন্মে আজব সব জিজ্ঞাসা। আর তার ইমান ধিরে ধিরে দুর্বল হতে থাকে। আর তাই সবলেরই নিজের ধর্ম ইসলাম সম্পর্কে ভালো ভাবে জানা দরকার।

আর তাছারা একজন মুসল মান তার জীবনে সবচেয়ে বেশী যে বিষয়টি জানতে বা পড়তে ভালোবাসে সেটি হলো ইসলামের ইতিহাস, ইসলামের গৈরব কাথা আর ইসলামের জন্য যুগে যুগে প্রেরিত নবী রাসুলদের জীবণী তাদের বাণী।

ইসলামিক বই সমূহ তুলে ধরার পূর্বে কিছু কথা

আল কোরআন যে বইটি মুসলিমদের জন্য একটি ‍খুবি পবিত্র বই যার মধ্যে লেখা থাকে মহান আল্লাহর পবিত্র বাণী। আল কুরআন বইটি কোনো সাধারণ বই না। এ বইটি সারা বিশ্বের যত বিজ্ঞান যত চিকিৎসা যত জ্ঞান আছে সবগুলির থেকে উধ্বে।

যে বিষয়টি বিজ্ঞান কয়েক দিন আগে মাত্র গবেষণা করে আবিষ্কার করল তা হাজার হাজার বছর আগে কোরআনে লেখা হয়ে আছে।

যেমন কুরআনে একটি সূরা যার নাম ”সূরা ইখলাস” যে সূরাটির মাধ্যমে মহান আল্লাহ মহানবি হযরত মেহাম্মদ (সা:) কে ইহদিদের করা মহান আল্লাহ তাআলার জন্ম এবং পিতা মাতা নিয়ে প্রশ্নের জবাবে নাজিল করেছেন তাতে একটি স্থানে বলা হয়েছে ”লামইয়ালিদ ওয়ালামইউলাদ” যার মানে মহান আল্লাহ বলেন আমি কারর থেকে জন্ম নেইনি বা আমি কাউকে জন্ম দেইনি।

লামইয়ালিদ কথাটিতে ২৩ আর ওয়ালামইউলাদ কথাটিতে ২৩ টি হরফ ব্যবহার করা হয়েছে। সূরাটিতে এ ২৩ এবং ২৩ ক্রোমোজনগুলি একটি হরকত জের দ্বারা বিভাজিত রাখা হয়েছে আর একটি সন্তানের জন্ম হতে এ ২৩ এবং ২৩ ক্রোমোজন মিলিয়ে মোট ৪৬টি ক্রমোজম হতে হয়।

আর সূলা ইখলাসে এ ২৩ এবং ২৩ বিভাজিত যাদের মিল হয়নি যার মানে না মহান আল্লাহ কারর থেকে জন্ম নেন নি আর তিনি কাউকে জন্ম দেননি, তিন এক এবং আদ্বিতিয় এবং তাহার কোনো সরিক নেই।

আর আমরা জানি মানুষের শরিরে মোট ২৩ জোড়া ক্রকোজম থাকে যার মানে মোট ৪৬টি ক্রমোজম। আর এ ক্রমোকজন সংখ্যা একটি কম বা বেশী হওয়া মানেই সে প্রাণীটি আর মানুষ থাকবে না।

লামইয়ালিদ এবং ওয়ালামইউলাদ এ দুইটি কথার মাঝখানে একটি মাত্র জের ব্যবহার করা হয়েছে আর এর আগে এবং পিছনে আর কোনো হরকত ব্যবহার করা হয়নি।

বিজ্ঞানিরা মাত্র কয়েক বছর আগে এ কথাটি আবিষ্কার কেরেছে আর সেটা মহান আল্লাহ তাআলার বাণী পবিত্র আল কোরআনে হাজার হাজার বছর আগে লেখা হয়ে আছে।

আর সকল প্রাণীর জন্য ক্রমোজম সংখ্যা নিদিষ্ট যেমন মৈমাছির ক্রমোজম সংখ্যা ১৬। এ কথাটিও কোর আনে উল্লেখ আছে। মহান আল্লহ কোনোকিছুই সরাসরি উল্লেখ করেননি তবে আপনি যুদি গণিতিকভাবে আর কাঠামোগত ভাবে বুঝার চেষ্টা করেন তো আপনি নিজেও দেখতে পাবেন আর নিজের বিষ্ময়ের সর্বউচ্চ সীমায় পৈছে যাবেন।

ইসলামিক বই সমূহ

শুরুর দিকেই আমি যে বইটির কথা বললো সেটা কোনো হাজার সাল পুরোনো বই না। ড. মরিস বুকাইলি ,  গ্যারি মিলার ,  ডঃ কিথ এল. মূর  দ্বারা লেখা আর  খোন্দকার রোকনুজ্জামান (অনুবাদক) দ্বারা অণুবাদ করা বই “আল কুরআন এক মহাবিস্ময়” এ বইটি নিয়ে।

বইটির লেখকগন কেউই কিন্তু বাংলাদেশী বা আরোবিয়ান না বা মুসলিম কেউ না তারা কুরআনের সাথে বিজ্ঞানের পার্থক্য করতে গিয়ে বা সামজস্ব খুজতে গিয়ে যে বিষ্ময়কর বিষয়গুলো পত্যক্ষ করেছে তাই তারা নিজেদের বইয়ে লিখেছে।

১. আল কুরআন এক মহাবিস্ময়

রকমারী থেকে আপনি বইটি কিনে নিতে পারবেম মাত্র ৭৫ টাকা দিয়ে তবে বইটির আসল মূল্য হলো ১০০ টাকা। আপনারা চাইলে বইটির প্রথম কিছু পূষ্ঠা চাইলে কেনার আগে পড়েনিতে পারবেন।

“আল কুরআন এক মহাবিস্ময়” এ বইটির পরে আমি যে বইটর কথা বললো সে বইটির নাম হলো ”ম্যাসেজ”। বইটি লিখেছেন মিজানুর রহমান আজাহারি। তরুন ইসলামিক আলোচক, জনপ্রিয় শায়েখ এবং বক্তা মিজানুর রহমান আজাহারি।

মিজানুর রহমান আজাহারিকে চেনেনা এমন মানুষ নেই বললেই চলে। তিনি তরুনদের জন্য একটি বই লিখেছেন যার নাম তিনি রেখেছেন ”ম্যাসেজ”। আর এ বইটির কভারে একটা ছোট কথা লিখেরেখেচেন তিনি যা বইটি পড়ার কৈতুহলকে আরও দ্বিগুন করে দেয়।

লেখাটি হলো “you have 12 unread messages!”.

২. ম্যাসেজ

”ম্যাসেজ” বইটি হলো সেই যুবক যুবাদের জন্য যারা মানুষিক ভাবে ভেঙ্গে আছে। বা বলতে গেলে নিজেদের বেচে থাকার কারণ খুজে পাচ্ছেনা আর নিজেদের বোঝা মনে করছে বা মনে করছে তার থেকে দুঃথি পূথিবীতে আর কেউই নেই।

যারা নিজের জীবণকে বিভিন্ন মাদক আর ডোজ এর দ্বারা দিনে দিনে কোনো একটা কারণে শেষ করে দিচ্ছে।

বইটি আশলেই খুর সুন্দর করে লিখেছে শায়েখ মিজানুর রহমান আজাহারি। আপনারও বইটি অনেক পছন্দ হবে। বইটিতে খুব সুন্দরকরে সব বিষয় বুঝানো হয়েছে।

বইটির মূল্যা মাত্র ২৭৫ টাকা। আপনার খুবসহজেই রকমারি থেকে বইটি কিনে নিতে পারবেন। হোম ডেলিভারির জন্য আপনার চার্জ কাটবে ৫০ টাকা। ঢাকার বাইলে হলে একটু সমস্যায় পড়তে পারেন।

“ম্যাসেজ” এ বইটির পরে আমি যে বইটির কথা বলবো তা ইতিমধ্যে আনেক বেশী জনপ্রিয়তা আর্জন করে রেখেছে। বইটির নাম হলো প্যারাডক্সিক্যাল সাজিদ যে বইটি লিখেছে আরিফ আজাদ। যারা বইটি পড়েছেন তারা বইটি সম্পর্কে জনেন আর যারা পড়েননি তারা আমার জানামতে নামটা অবশ্যই শুনেছেন।

কারন এ বইটি আনেক অবিশ্বাস্বীদেরকে নারিয়ে রেখে দিয়েছিল আর তাছারা সোসাইল মিডিয়াতে এ বইটি নিয়ে উঠেছিল প্রবল আলরণ। আর এখনও এ বইটি ঠিক ততটাই জনপ্রিয় আর ভালোবাসার।

৩. প্যারাডক্সিক্যাল সাজিদ

চারিদিকে যখন ছরিয়ে ছিটিয়ে আছে ইসলামদ্রহিরা আর বিভ্রান্তিকর প্রশ্ন আর অপপ্রচার তখন নিয়মতই সাধারণ মানুষের মাঝে তৈরি হয়ে চলেছে সন্দেহ যার থেকে সংশয় আর সংশয় থেকে অবিশ্বাস তখন কিছু যুবক যারা ক্রমাগত দিয়ে চলেছে এ ইসলামদ্রহি আর নাস্তিদের সকল প্রশ্নের জবাব তাদের মধ্যে আরিফ আজাদও একজন।

বাংলা দিক দিয়ে শিক্ষিত হওয়ায় আর ইসলামিক দিকদিয়ে কম জানায় অবিশ্বাসিদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবারে আমরা চুপ করে যাই। কিন্ত এ বইটি পড়ার মাধ্যমে আপনার ইসলাম এর জ্ঞান ভান্ডার আরও পরিপূর্ণ হবে।

বইটিতে সাজিদের ক্যারেক্টারটির মাধ্যমে বর্তমানের যুবক যুবাদের সকল প্রশ্নের উত্তর দিয়েছে লেখক।

”প্যারাডক্সিক্যাল সাজিদ” বইটি পেয়ে যাবেন রকমারিতে মাত্র ২০০টাকার বিনিময়ে। আপনারা চাইলে বইটি একটু খুলে পড়ে নিতে পারবেন। আমি নিজে বইটি পড়েছি আসলেই আনেক সুন্দর করে লিখেছে যে এখনও এটি শীর্ষ ইসলামিক বইগুলোর মধ্যে এখনও একটি।

আর তাছারা মিজানুর রহমান আজাহারি যিনি একজন ইসলামিক বিশেষজ্ঞ, শায়েখ এবং জনপ্রিয় বক্তা তিনি নিজেও এ বইটি পড়েছেন এবং তরুন সমাজকে পড়তে জানিয়েছেন।

”প্যারাডক্সিক্যাল সাজিদ” বইটির পড়ে আমি যে বইটি আপনাদে সামনে তুলে ধরবো সে বইটি হলো প্যারাডক্সিক্যাল সাজিদ ২।

আমি প্রথম প্যারাডক্সিক্যাল সাজিদ বইটি পড়েছি আর সেটা আমার খুবি ভালো লেগেছে। তবে আরিফ আজাদের লেখা বই প্যারাডক্সিক্যল সাজিদ ২ বইটির সূচিপত্রটা দেখে আমি বিষণ আবাক হয়েছিলাম। কারণ এখানে এমন কিছু প্রশ্নের উত্তর আরিফ আজাদ লিখেছে যা আসলে যুবক যুবাদের ধ্যানধারণা তৈরি হওয়ার পর করে থাকে।

৪. প্যারাডক্সিক্যাল সাজিদ ২

আর আনেক অবিশ্বাসিরা এ প্রশ্নগুলোকে সূত্র করে বিশ্বাসিদে হয়রানি করে আর তাদের বিশ্বার ভাঙ্গার চেষ্টা করে। এ বইটি পড়ে আমার মতে আপনার ইমান আরও শক্ত হবে আর চিন্তার ধরণ পরিবর্তিত হবে।

আমি বইটি সম্পর্কে তেমন ভাবে বিস্তারিত কিছু বলব না কারণ আমি চাই আপনারা নিজেরা এ বইটি পড়ুন এবং জানুন। প্যারাডক্সিক্যাল সাজিদের প্রথম ভার্সনটি পড়ার পড় যখন প্যারডক্সিক্যাল সাজিদ ২ আসলো সাথেসাথে বইটি আনেক সাড়া যুগিয়ে নিলো ঠিক প্যারাডক্সিক্যাল সাজিদ এর মতো।

বইটি মূল্য ২৫২ টাকা তবে বইটির আসল মূল্য ৩৩৬ টাকা। আপনারা রকমারি থেকে বইটি কিনে নিতে পারবেন।

প্যারাডক্সিক্যাল সাজিদ ২ এর পড়ে আমি যে বইটির কথা বলবো সে বইটির নাম হলো ”ইসলামি তথ্যকোষ”। বইটির সূচিপত্রের দিকে তাকালেই আপনি বই পড়ার জন্য আগ্রহি হয়ে উঠবেন।

৫. ইসলামি তথ্যকোষ

”ইসলামি তথ্যকোষ” বইটি লিখেছেন এস. এ. আর. ছিবগাতুল্লাহ ,  এস. এ. এস. মোহাম্মদ জাকারিয়া ,  মুহাম্মদ বিন আমিন ,  মুফতি মুহাম্মদ আমিমুল ইহসান (সম্পাদক)। বইটি লেখাহয়েছে নবী রাসুলগন, তাদের জীবনী এবং তাদের ইতিহাস নিয়ে। বইটিতে আরও লেখা হয়েছে মহান সূষ্টিকর্তা আল্লাহন সূষ্টি নিয়ে। বইটিতে আরও আনেককিছু লিখা হয়েছে।

বইটি আমি নিজে পড়েছি আর সত্যি বইটি আসাধারণ।

Featured