ফেসবুকে কিভাবে টাকা আয় করা যায় জেনেনিন

img

ফেসবুক থেকে কী কী পদ্বতিতে আয় করা যায় এবং কী ভাবে বেশী আয় করে নেওয়া যায় ”ফেসবুকে কিভাবে টাকা আয় করা যায়” এ আর্টিকেলটিতে তার সবই বলবো।

আপনারা হয়তো ইউটিউব থেকে আয় স্পর্কে শুনেছেন, ব্লগ থেকে আয় শুনেছেন, অ্যাপ তৈরি করে আয় সম্পর্কে শুনেছেন তবে আজ আমি আপনাদের ফেসবুক থেকে আয় নিয়ে বলবো।

আনেকেই জানেন না যে ফেসবুক থেকে আয় করা যায়। তবে আবার আনেকে জানেন কিন্তু কী ভাবে এবং কী কী মাধ্যমে আয় করা যায় তা জানেন না।

আপনি চাইলে ব্লগিং করে অনেক টাকা আয় করতে পারেন। Blogging Beginners Tips গুলো ভালো ভাবে জেনে নিয়ে শুরু করে দিতে পারেন।

আর তাই ঘন্টার পর ঘন্টা ফেসবুকে ভিডিও আপলোড করে, পোস্ট করে, পেইজে ছোট খাটো হাসির বিষয় নিয়ে পোস্ট করে সময় কাটিয়ে দেয়। তবে আপনি আপনার এ ঘন্টার পর ঘন্টাকে হাজারের পর হাজার হলারে পরিণত করে নিতে পারবে।

তো চলুন আপনাদের একের পর এক ফেসবুক থেকে ইনকাম করার পদ্বতি গুলো পরিচিত করিয়ে দেই। অবশ্যই সম্পূর্ণ আর্টিকেলটি পড়বেন কারণ হতে পারে আপনার পেজটি বা আপনার স্কিলটি আপনার ইনকামের কারণ হয়ে যেতে পালে।

ফেসবুক ভিডিও থেকে কিভাবে আয় করবেন

ফেসবুক মার্কেটপ্লেস থেকে ইনকাম

বর্তমানে ফেসবুক একটি নতুন মাত্রা যুক্ত করে দিয়েছে তাদের অ্যাপটিতে। আর সেটি হলোড ফেসবুক মার্কেটপ্লেস। ফেসবুক মার্কেটপ্লেস এর মাধ্যমে একজন ইউজার নিজের পণ্য বা লোকাল কোনো প্রভাইডারের পণ্য বিক্রি করে ইনকাম করে নিতে পারে।

আপনি ফেসবুক মার্কেটপ্লেসে আপনার পণ্য বিক্রিয় করে তার থেকে সরাসরি টাকা হাতে নিয়ে নিতে পারবেন। তবে এখন আপনার বিজনেস নেই।

বা আপনি কোনো পণ্য সেল করেন না। তবে আপনি ফেসবুক মার্কেটপ্লেস থেকে কী ভাবে ইনকাম করবেন?

আপনি আপনার আশে পাশের লোকাল পণ্য বিক্রয় করে তার থেকে কমিশণ নিয়ে ইনকাম করে নিতে পারবেন।

তবে এখানে কথা হচ্ছে যে সে পণ্য আপনি এখানে বিক্রি করে নিতে পারবেন না। এমন সব পণ্য যা অনেক ট্রেন্ডিং বা যা প্রায় সবাই পছন্দ করে বা কিনে থাকে তারই সেল আপনাকে করতে হবে।

যেমন মেয়েদের সাজসজ্জার জিনিসপত্র বা ছেলেদের সানগ্লাস বা কোনো ছোট খাটো রেসটুরেন্ট এর খাবার।

আপনি যাই বিক্রি করতে চাইবেন তার কয়েকটি ছবি আর মূ্ল্য লিখে আপনি পোস্ট করে দিতে পারবেন। অবশ্যই সেখানে আপনার মোবাইল নাম্বার আর এডড্রোস বা লোকেশন এড করে দিবেন।

লুডু খেলে টাকা আয় করুন একেবারে সঠিক পদ্বতিতে

কারণ যুদি কিউ আপনার পণ্য কিনতে আগ্রহি হয় তবে সে আপনার সাতে সরাসরি যেগাযোগ করবে। আর আপনার লোকেশন দেখে বুঝতে পারবে আপনার সার্ভিস বা পণ্য তারা নিতে পারবে কি না।

ফেসবুক মার্কেট প্লেসে কাজ করার জন্য আপনাকে কোনো মেজর নিয়মের ভতর দিয়ে যেতে হবে না। আপনি চাইলেই সেল করা শুরু করে দিতে পারবেন।

ফেসবুকে ভিডিও পোস্ট করে ইনকাম

ইউটিউব থেকে যে ভাবে ভিডিও মনেটাইজেশণ করিয়ে ইনকাম করে নেওয়া যায় ঠিক তেমনি ফেসবুক থেকেও ভিডিও মনেটাইজেশন করিয়ে ইকাম করে নেওয়া যায়।

কাজটি মজার মনে হয়েও একটু কঠিন আছে। কারণ আপনি হুট করেই আপনার ভিডিও মনেটাইজেশণ করিয়ে নিতে পারবেন না। ইউটিউবে যেমন হাজারটা সাবসক্রাইবার আর চারহাজার ওয়াচ টাইম লাগে ঠিক তেমনি ফেসবুকেরও কন্ডিশণ আছে।

আপনি যুদি আপনার ভিডিও মনেটাইজেশন করিয়ে নিতে চান তবে আপনাকে কিছু কন্ডিশন ফুল ফিল করতে হবে।

আর সেগুলো হলো:

  • আপনার একটি ফেসবুক পেজ থাকতে হবে।
  • ফেসবুক পেজটিতে ১০ হাজার ফলোয়ার বা তার বেশী থাকতে হবে।
  • আপনার ভিডিও ওয়াচ টাইম এটলাস্ট ৬০ হাজার হতে হবে আর অবশ্যই ৬০ দিনের ওয়াচ টাইম।
  • আপনার ভিডিও গুলো এটলাস্ট ১ মিনিটের হতে হবে।
  • আপনার ভিডিও গুলো ৩ মিনিটের চেয়ে বেশী লং হতে পারবে না।
  • যুদি আপনার ভিডিও গুলো ৩ মিনিট লং হয় তবে আপনাকে প্রতি এক মিনিটের পর একটি করে বিরতি লাগাতে হবে।
  • আপনার পেজটিতে অবশ্যই ৫টি এক্টিভ ভিডিও থাকতে হবে। এক্টিভ ক্রসপোস্টেড ভিডিও হলে চলবে না।

এ শর্তগুলো ফুল ফিল করলেই আপনি ফেসবুক থেকে মনেটাইজেশনের জন্য এলিজেবল হয়ে যাবেন।

আপনি একবা এলিজেবল হওয়ার পর আপনার ভিডিও গুলোলে এড দেখানো শুরু হয়ে যাবে। আর সেটা অটোমেটিকলি হবে ঠিক যেমনটা ইউটিউবে হয়ে থাকে।

মনে রাখবেন আপনি কখনই আপনার প্রফোইলে ভিডিও পোস্ট করে ইনকাম করতে পারবেন না। অবশ্যই আপনার ভিডিও গুলো আপনার ফেসবুক পেইজে আপলোড করতে হবে।

আর আমার সাজেশন আপনারা যুদি এভাবে ইনকাম করতেই চান তবে ভিডিও আপলোড করার ক্ষেত্রে ১ মিনিট লং বা ২ মিনিট লং ভিডিও আপলোড করুন তবে ৩ মিনিট লং ভিডিওগুলো আপলোড করবেন না।

টাকা আয় করার apps

এখানে ক্লিক করে আপনি আপনার পেইজের এড শো করারনোর এলিজেবেলিটি বা যেগ্যাতা যাচািই করে নিতে পারবেন।

ফেসবুকে কিভাবে টাকা আয় করা যায়

Check your eligibility

ফেসবুক মনেটােইজেশন এর পর আপনার ভিডিও গুলোতে যে এড শো করে তাকে বলা হয় In-stream ads. আর এর মাধ্যমেই ইউজারের ইনকাম হয়।

Join In-stream ads

আপনি উপরের লিংকটি দিয়ে In-stream ads এ জয়িন করতে পারবেন তবে সকল কন্ডিশন ফুল ফিল করার পর।

ফেসবুক Instant Article থেকে ইনকাম

ফেসবুক শুধু যে ভিডিওই মনেটাইজেশন করে তা কিন্তু নয়। এটি আপনার আর্টিকেলকেও মনেটাইজেশন করার অণুমতি দেয়। আপনি আপনার কন্টেন্টকে মনেটাইজেশন করিয়ে ইনকাম করে নিতে পারবেন।

ফেসবুক Instant Article থেকে টাকা ইনকাম করতে হলে অবশ্যই আপনার একটি ওয়েবসাইট থাকতে হবে। আর আপনার ওয়েবসাইটে অবশ্যই ৫০টির বেশী পোস্ট থাকতে হবে।

তবেই আপনি ফেসবুক Instant Article এর জন্য রিকুয়েস্ট করতে পারবেন। নয়তো পারবেন না। আপনি সে জন্য আপনার ফ্রি ব্লগার ওয়েবাসাইটও ইউজ করে নিতে পারবেন।

অবশ্য আপনাকে আপনার আর্টিকেলটি Instant Article এর জন্য সেটআপ করতে আনেকটা কাজ করতে হয়। তবে একাবার সেটআপ হলে ভালো ইনকাম হয়।

আমি আমার অন্য কোনো আর্টিকেলে কিভাবে আপনারা আপনাদের ওয়েবসাইজের জন্য Instant Article সেট আপ করবেন তা বলে দিব।

জেনেনিন Instant Article এর সুবিধা গুলো

ফেসবুক Instant Article মূলত এসেছে ওয়েবসাইটের কন্টেন্ট লোডিং এর ঝামেলা দুর করার জন্য। একটি ওয়েবসাইট থেকে একটি আর্টিকেল বা কন্টেন্ট লোড হতে অনেকটা সময় নিয়ে থাকে।

তবে Instant Article খুবি দ্রুত লোড হয়। আর মজার বিষয় হলো ফেসবুক Instant Article আপনাকে সুযোগ করে দেয় একটা বিশাল অডিয়েন্সের সামনে আপনার পেজ নিয়ে যাওয়ার। কারন এতে আপনার কোনো কম্পাটিটর থাকে না।

এখানে আপনার কন্টেন্ট যুুদি ভেলু রাখে তবে আপনার কন্টেন অডিয়েন্স ভিউ করবে।

আর এখানে বলে রাখি যে আপনি যখন Instant Article ইউজ করবেন তখন আপনার কন্টেন্টে যেটি Instant Article দেখাচ্ছে সেটাতে আপনার গুগল এড শো হবে না বরং শুধু ফেসবুক এড শো হবে।

চিন্তার কিছুই নেই গুগল রেংকিং এ আপনার সাইটে যে অরগেনিক ট্রাফিক আসবে তাতে গুগল অ্যাডই শো করবে। কিন্তু ফেসবুকের ভিতরে শুধু ফেসবুক এড শো করবে।

ফেসবুকে অ্যাফেলিয়েট মার্কের্টিং করে

অ্যাফেলিয়েট মার্কেটিং কী?

মনে করুন আপনি একজন দোকানির পণ্য বিক্রি করতে সাহায্য করলেন বিভিন্ন ভাবে কাস্টমার এনে। আর সেই জন্য দোকানি আপনাকে তার প্রতি পণ্যে লাভাংশ থেকে কিছু টাকা দিল। আর এ টাকাটা আপনার লাভ অথাৎ আপনার ইনকাম।

এটাই হলো অ্যাফেলিয়েট মার্কেটিং এর কাজ।

এখানে আপনি একজন অ্যাফেলিয়েট মার্কেটার আর দোকানি হলো Amazon, ebuy বা কোনো একটা অনলাইন মার্কেট। আপনি Amazon, ebuy এর পণ্য গুলো বিক্রি করে দিলেন আর তাই তারা আপনাকে কিছু টাকা দিবে।

এ কাজ করার জন্য আপনাকে আপনি যে অনলাইন মার্কেটে জয়িন করতে চান তার অ্যাফেলিয়েট মার্কেটিং এ জয়িন করতে হবে।

প্রত্যেকটি অনলাইন মার্কেটেই এই অফারটি থাকে। আপনি চাইলে জয়িন করে নিতে পারবেন।

আপনাকে তারা আপনি যে পণ্যটি বছাই করবেন তার একটি লিংক দিবে আর প্রয়োজনে আপনি পণ্যটির পিকচার নিয়ে নিতে পারবেন। আর সেই লিংটি বিভিন্ন ফেসবুক এড এর মাধ্যমে প্রমোট করতে পারবেন আর আপনার পেইজের মাধ্যমে সেল করতে পারবেন।

বিনিময়ে আপনি পণ্যটির প্রতি সেল থেকে কিছু শতাংশ লাভ বা মোনাফা পাবেন।

ফেসবুক মার্কেটিং ম্যানেজার হিসেবে ফ্রিল্যান্সিং করে আয়

এভাবে আয় করাটা ফেসবুক থেকে আয় করা কথার সাথে সমমত পোষন না করলেও এটা করে আপনি শুধু মোবাইল থেকে ভালো এমাউন্টের টাকা ইনকাম করে নিতে পারবেন।

আপনি যে কোনো ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস জয়িন করে একজন ফেসবুক মার্কেটিং ম্যানেজার হিসেবে কাজ করে নিতে পারবেন।

কারণ এমন আনেক ব্যাক্তি আছে যারা নিজেদের কাজের জন্য বা বেশী ব্যাস্থ থাকার জন্য নিজেদের ফেসবুক পেজ গুলো তেমন দেখা শোনা করতে পারে না।

বাংলাদেশে অ্যাবেলাভল জনপ্রিয় অনলাইন মার্কেটপ্লেসগুলো

আর তাই তারা ভিবিন্ন মার্কেটপ্লেস থেকে ফ্রিল্যান্সার হায়ার করে থাকে। যারা তাদের ফেসবুক একাউন্টগুলো দেখা শোনা করে থাকে। তাদের কাজের তালিকা খুবি সহজ।

এই ধরুন পেজে পেস্ট করা, কোনো ভিডিও বোস্ট করা বা পেজ ফলোয়ারদের ভিবিন্ন সাপোর্ট করা আরও কিছু কাজ।

এ কাজ গুলো আপনারা আপনাদের মোবাইল থেকেই করে নিতে পারেন। এগুলো করার জন্য ল্যাপ্টপ বা কম্পিউটারের প্রয়োজন হয় না।

Note

If you want to make a stylish bio for Instagram then Visit Fancy text generator there you can generate different stylish text for free

ফেসবুক থেকে ইনকাম করতে চাইলে কত দিন সময় লাগতে পারে?

আপনি একজন কন্টেন্ট ক্রিয়েটর হয়ে থাকলে ফেসবুক থেকে আপনি আয় করতে পারবেন। যদিও ফেসবুক থেকে লোকাল ব্যবসা করা সহজ কিন্তু আপনি একজন ক্রিয়েটর হয়ে থাকলে ফেসবুক আপনাকে সেই সুযোগ করে দিচ্ছে।

Facebook earning condition

বিষয়টি এমন নয় যে আপনি চাইলে আর ফেসবুক থেকে ইনকাম শুরু হয়ে গেলো। ফেসবুক থেকে ইনকাম করার জন্য আপনাকে অনেক পরিশ্রম করতে হবে।

ফেসবুকের কিছু নিদিষ্ট শর্ত আছে যা আপনাকে পালন করতে হবে। আপনি ফেসবুকে সেই সকল তথ্য সঠিক ভাবে ফুলফিল করতে পারলে ফেসবুক আপনাকে আয় করার জন্য সুযোগ প্রদান করবে।

  • সর্ব মোট 600,000 মিনিট ভিউ লাগবে লাষ্ট ৬০ দিনে। ( আপনি পোষ্ট বুষ্ট করে এই মিনিট পৌচ্ছালে তা এখানে কাউন্ট করা হবে না। ) আপনি আপনার পেজ থেকে যে সকল লাইভ ভিডিও করবেন সেই সকল সময় যুক্ত হবে।
  • মিনিমাম ৬ টি ভিডিও লাগেব আপনার পেজে।
  • প্রতিটি ভিডিও দৈর্ঘ্য ৩ মিনিটের বেশি হতে হবে।
Facebook Video length

যেহেতু ফেসবুক একটি পপুলার ফ্লাটফর্ম বাংলাদেশে সেহেতু আপনার একটি সুযোগ আছে ফেসবুক থেকে আয় করার। এক্ষেত্রে আপনাকে অবশ্যই ফেসবুকের নিয়ম গুলো মেইনটেইন করতে হবে।

সুতরাং ফেসবুক থেকে কত দিনে আয় শুরু হবে এটা নির্ভর করবে আপনার উপর বা আপনার ভিডিও গুলোর উপর। আপনি যত তাড়াতারি ফেসবুকের রুল গুলো ফিলাপ করতে পারবেন তত তাড়াতারি আয় করতে পারবেন।

  • Facebook
  • Twitter
  • Linkedin
This div height required for enabling the sticky sidebar
Ad Clicks : Ad Views : Ad Clicks : Ad Views :